আত্মসমর্পণ : সহযোগী বাহিনীসহই

InstrumentOfSurrenderএকাত্তরে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা প্রায়ই তদন্ত কর্মকর্তা ও সাক্ষীদের কাছে জানতে চান, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সঙ্গে সহযোগী বাহিনীও (রাজাকার, আলবদর, আলশামস ইত্যাদি) আত্মসমর্পণ করেছিল কি না। আসলে রেসকোর্স ময়দানে আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে রাজাকার-আলবদরের চাঁইরা কেউ হাজির ছিল না। অবস্থা বেগতিক দেখেদের কেউ কেউ আগেই দেশ ছেড়ছিল, কেউ কেউ চলে গিয়েছিল আত্মগোপনে। তাদের চেহারা, ভাষা ইত্যাদি ছিল লুকিয়ে থাকার উপযোগী। তবে সশরীরে তারা আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে হাজির না থাকলেও তাদের পাকি প্রভুরা আত্মসমর্পণ দলিলে তাদের কথাও অন্তর্ভুক্ত করে।

ওই দলিলে বলা হয়, The Pakistan Eastern Military High Command agree to surrender all Pakistan Armed Forces in East Pakistan to Lieutenant-General Jagjit Singh Aurora— General Officer Commanding-in-Chief of the Indian Army and the Mukti Bahini in Eastern Pakistan. This surrender includes all Pakistan landAir Force and Naval forces as also all equipment, property paramilitary forces and civilians armed forces to the Indian Army. These forces will lay down their arms and surrender everything at the places where they are currently located to the nearest regular troops under the command of Lieutenant-General Jagjit Singh Aurora. এখানে প্যারামিলিটারি ফোর্সেস ও সিভিলিয়ান আর্মড ফোর্সেস বলতে রাজাকার, আলবদর, আলশামস, মুজাহিদ বাহিনী, শান্তি কমিটি ইত্যাদিকে বোঝানো হয়েছে।

Advertisements

Leave a comment

Filed under Bangladesh liberation war, Crimes against huminity

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s