গোলাম আযমকে অনুকম্পা দেখানো কতটা ন্যায্য?

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশে সংঘটিত গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধের প্রধান ষড়যন্ত্রকারী, উসকানিদাতা এবং রাজাকার, আলবদর, আলশামসের মতো প্যারামিলিটারি গড়ার মূল কারিগর গোলাম আযমের বিরুদ্ধে পাঁচ ধরনের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়া সত্ত্বেও তাঁকে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড না দিয়ে ৯০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বিচারপতি এ টি এম ফজলে কবীরের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ গত সোমবার এই রায় ঘোষণা করেন। রায়ে বলা হয়েছে, গোলাম আযমকে ৯০ বছর অথবা আমৃত্যু কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে। রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়েছে, ন্যায়বিচারের স্বার্থে এবং স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতি বিবেচনায় গোলাম আযমের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডই প্রাপ্য। কিন্তু তাঁর বয়স ৯১ বছর ও শারীরিকভাবে তিনি অসুস্থ। ২০১২ সালের ১১ জানুয়ারি কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হলেও অসুস্থতার কারণে সেদিন থেকেই ট্রাইব্যুনালের নির্দেশে তাঁকে হাসপাতালের প্রিজন সেলে রাখা হয়েছে। এ বিষয়টি বিবেচনা করে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে কারাদণ্ড দেওয়া হলো। Continue reading

Advertisements

Leave a comment

Filed under Crimes against huminity

সাকা নাকি দেশেই ছিলেন না, তাহলে আহত হয়েছিল কে?

মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশে ছিলেন না বলে দাবি করেছেন একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় নিজের পক্ষে সাফাই সাক্ষ্য দিতে গিয়ে সোমবার এই দাবি করেন বিএনপির এই নেতা, যাকে একাত্তরে প্রত্যক্ষভাবে নির্যাতন চালাতে দেখার কথা ট্রাইব্যুনালে বলেছেন রাষ্রট্রপক্ষের সাক্ষীরা। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ সোমবার অষ্টম দিনের মতো সাক্ষ্য দেন সাকা। তিনি বলেন, একাত্তরের ২৯ মার্চ বিকালে করাচির উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছিলেন তিনি। অক্টোবর পর্যন্ত পাকিস্তানে থেকে তারপর লন্ডন চলে যান তিনি এবং ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত তিনি যুক্তরাজ্যেই ছিলেন। তিনি আরো বলেন, ২৯ মার্চ তাকে তেজগাঁও বিমানবন্দরে পৌঁছে দেন চাচাত ভাই কাইয়ুম রেজা চৌধুরী। সন্ধ্যায় তিনি করাচি বিমানবন্দরে নামলে তাকে নিতে আসেন তার স্কুলজীবনের বন্ধু মুনীব আর্জুমান্দ খান এবং মাহমুদ হারুনের (ডন গ্রুপ অব পাবলিকেশন্সের কর্ণধার) ব্যক্তিগত সহকারী। করাচিতে তিন সপ্তাহ অবস্থানকালে মাহমুদ হারুনের বাড়িতে ছিলেন বলে জানান সালাউদ্দিন কাদের। সালাউদ্দিন কাদের বলেন, করাচিতে থাকার সময় সালমান এফ রহমান, নিজাম আহমেদ, কাইয়ুম রেজা চৌধুরী, আরিফ জিওয়ানি, ওসমান সিদ্দিক ও রেজাউর রহমানের সঙ্গে তার চলাফেরা ছিল। তিনি বলেন, ওই সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ট্রান্সফার নিয়ে মে মাসে পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন তিনি। তখন নটরডেম কলেজে পড়াকালীন বন্ধু হাসনাইন খুরশেদের সঙ্গে তার দেখা হয় এবং দুজনই দীর্ঘসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারে কাটাতেন। সালাউদ্দিন কাদের বলেন, একাত্তরের অগাস্ট মাসে তিনি মারিতে বেড়াতে যান এবং সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে তিনি লাহোরে ফিরে আসেন। Continue reading

Leave a comment

Filed under Bangladesh liberation war, Crimes against huminity

এবার খেপেছেন সরকারদলীয় নারী এমপি

সংসদে বিরোধীদলীয় একাধিক নারী এমপির অশালীন বক্তব্যের পর এবার খেপেছেন সরকারদলীয় এক নারী এমপি। বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া এবং তাঁর মায়ের চরিত্র নিয়ে যাচ্ছেতাই মন্তব্য করেন সরকারদলীয় সদস্য অপু উকিল। খালেদা জিয়ার নিজের ও তাঁর সন্তানের পিতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। অপু উকিল গতকাল বৃহস্পতিবার সংসদে বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, খালেদা জিয়ার মা লক্ষ্মী রানী মারমা দার্জিলিংয়ের চা-বাগানের মালিক উইলসনের ‘চাকরানি’ ছিলেন। পাকিস্তানের সাবেক সেনা কর্মকর্তা সিদ্দিক সালিকের ইন্দো-পাকিস্তান ওয়ার অব ১৯৬৫ বইটির বরাত দিয়ে তিনি এসব বক্তব্য দেন। বক্তব্য দেওয়ার সময় লাল মলাটের বইটি তুলে ধরে প্রদর্শন করেন তিনি। Continue reading

Leave a comment

Filed under Bangladesh, Politics

অশালীন বক্তব্য না দেওয়ার আশ্বাস এক সপ্তাহও টিকলো না

গত ১৬ জুন দুপুরে বিএনপির সংসদীয় দল স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করে আশ্বাস দিয়েছিল, বিরোধী দল জাতীয় সংসদে আর ‘অশালীন’ ও ‘অসংসদীয়’ বক্তব্য দেবে না। সেই আশ্বাস দেওয়ার পর সপ্তাহ না ঘুরতেই আবার সংসদে ‘ছি’ ‘ছি’রব উঠল বিএনপির সংসদ সদস্য শাম্মী আক্তারের পড়া কবিতা নিয়ে। ওই কবিতার একটি শব্দে আপত্তি জানিয়ে সরকারি দলের সদস্যরা ‘ছি’ ‘ছি’ করে উঠলে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী তা কার্যবিবরণী থেকে বাদ (এক্সপাঞ্জ) দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানান।
গতকাল বুধবার বাজেট নিয়ে আলোচনায় সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য শাম্মী কবি হেলাল হাফিজের একটি কবিতার অংশ থেকে পড়তে থাকেন। তিনি বলেন, ‘গুছাইয়া-গাছাইয়া লন, বেশি দিন পাইবেন না সময়/আলামত যা দেখতাছি মানুষের হইবোই জয়/আমিও গেরামের পোলা…. গাইল দিতে জানি।’ এই কবিতাংশ বলে শাম্মী বক্তব্য শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে বিরোধী দলের সদস্যরা টেবিল চাপড়ে তাকে সমর্থন জানান। অন্যদিকে সরকারি দলের সদস্যরা ‘ছি’ ‘ছি’ বলতে থাকেন। শাম্মীর বক্তব্যের পর স্পিকার শিরীন শারমিন বলেন, ‘আপনার বক্তব্যে কিছু অসংসদীয় শব্দ আছে। সেগুলো এক্সপাঞ্জ করা হবে।’
গত ৯ জুন সংসদ অধিবেশনে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপির সংসদ সদস্য ফেনীর বাসিন্দা রেহানা আক্তার রানু। রেহানা তার অঞ্চলের ভাষায় সরকারকে হুঁশিয়ার করে বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়া কোনো চুদুরবুদুর চইলত ন।’

Leave a comment

Filed under Bangladesh, Politics

সংসদে অশালীন বক্তব্য আর দেবে না বিরোধী দল!

বিরোধী দল বিএনপি জাতীয় সংসদে আর ‘অশালীন’ ও ‘অসংসদীয়’ বক্তব্য দেবে না। আজ রবিবার দুপুরে বিএনপির সংসদীয় দল স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করে এই আশ্বাস দিয়েছে।
বিরোধী দলের সঙ্গে সাক্ষাতের পর স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। স্পিকার বলেন, ‘বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা সংসদে অশোভন, অসংসদীয় ও আক্রমণাত্মক ভাষার ব্যবহার নিয়ে কথা বলেছেন। এসব ভাষার ব্যবহার রোধে স্পিকার হিসেবে আমার ভূমিকা কী হবে, সেটা নিয়ে কথা হয়েছে।’ Continue reading

Leave a comment

Filed under Bangladesh, Politics

কী আনন্দ আকাশে বাতাসে

Reshmaদেইল্লা রাজাকারের ফাঁসির রায় ঘোষণার পর দেশজুড়ে জামায়াত-শিবিরের নৈরাজ্য-তাণ্ডব, এর রেশ কাটতে না কাটতেই সাভারে বহুতল ভবনধসে শত শত মানুষের মৃত‌্যু, সাভারের ধ্বংসস্তূপ সরানো ও উদ্ধারকাজ শেষ না হতেই রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রে হেফাজতী তাণ্ডব। কয়েক মাস ধরেই এ ধরনের আতঙ্ক-বিষাদময় ঘটনায় স্বস্তির নিশ্বাস ফেলাই দায় হয়ে পড়েছিল। অবশেষে আজ শুক্রবার সাভারে রানা প্লাজা ধসের ১৭তম দিনে ধ্বংসস্তূপের মধ্যে মিলল প্রাণের সন্ধান। জীবিত অবস্থায় উদ্ধারও করা হলো রেশমা নামের ওই তরুণীকে। এ আনন্দ প্রকাশের ভাষা কোথায় পাই!

Leave a comment

Filed under Bangladesh

আলবদরের প্রধান সংগঠকের ফাঁসির রায়

K Zamanএকাত্তরে আলবদর বাহিনীর প্রধান সংগঠক, জামায়াতে ইসলামীর বর্তমান সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের বিরুদ্ধে অপহরণ, নির্যাতন, হত্যা, ধর্ষণসহ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের পাঁচটি অভিযোগ সুনির্দিষ্টভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এসবের মধ্যে দুটি অভিযোগে তাকে সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার আদেশ দেওয়া হয়েছে। অন্য দুটি অভিযোগে যাবজ্জীবন এবং আরেকটি অভিযোগে ১০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও মো. শাহিনুর ইসলাম সমন্বয়ে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এ রায় ঘোষণা করে। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার এটি চতুর্থ রায়। Continue reading

Leave a comment

Filed under Bangladesh, Crimes against huminity